Kambal Niruddesh [Novel]

কম্বল নিরুদ্দেশ [উপন্যাস]

 

== এই ব্লগে প্রদর্শিত অপরের রচনাংশ, স্থিরচিত্র বা অলংকরণের কপিরাইট আমাদের নয় == 

পোস্টের বক্তব্য স্পষ্টতর করতে এগুলি সাজানো হচ্ছে কোনও ব্যবসায়িক স্বার্থে নয়  



সন্দেশপত্রিকায় আবার চার মূর্তি-র ধারাবাহিক উপন্যাস

আগের তিনটিতে ঝন্টিপাহাড়, ডুয়ার্স, দার্জিলিং
এই শেষ নভেলের ঘটনাস্থল কিন্তু ঘরের কাছেই ।
এক মঙ্গলবার-এ অভিযানের সূত্রপাত 
বদ্রী বাবু-র প্রেস হয়ে চাঁদনি-র বাজার, তেরো নম্বর শেয়ালপুকুর রোড 
রবিবার-এ পাঁশকুড়া লোকাল-এ চড়ে মহিষাদল
সেখানকার ‘চন্দ্র-নিকেতন’-এ কিন্তু রহস্যের গেরো পুরোপুরি খোলে না ।
ব্যাক টু পটলডাঙা

উপন্যাস # ২, ৩-এ খলচরিত্র ছিল না ।
চার মূর্ত্তি’-তে কিন্তু স্বামী ঘুটঘুটানন্দ-র নেতৃত্বে চলত নোট জালের কারবার ।
কম্বল নিরুদ্দেশ’-এ চোরাকারবারি দল । লিডার – স্বামী বিটকেলানন্দ
তিনি অবশ্য সশরীরে হাজির নন ।

প্রবেশের ক্রমানুসারে চার বন্ধুর এই চতুর্থ নভেলের চরিত্রলিপি দেখে নেওয়া যাক । 
কম্বল-এর কাকা বদ্রী বাবু । চক্রধর-এর গাঁ-তুতো ভাগনে হলধর জানা ঢ্যাঙা বিন্দেবন 
বিটকেলানন্দ-র প্রধান শিষ্য পাটকেলানন্দ ওরফে চক্রধর সামন্ত
(নেপথ্যে) পাঁশকুড়া লোকাল-এ বৈরাগী-মার্কা পুলিশের চর নাকেশ্বর - থুড়ি - চন্দ্রকান্ত চাঁই 
খগেন মাশ্চটক চন্দ্রকান্ত-র পরিচারক বিধু মহিষাদল-এর দারোগা
এক্কেবারে শেষে নিরুদ্দেশ-হওয়া শ্রীমান কম্বল
তবে নেপথ্যে রয়ে যান কম্বল-এর কাকিমা
এছাড়া না-মানুষ চরিত্র । অবকাশরঞ্জিনী বাদুড়, ছারপোকা বিক্রমসিংহ, মূষিক-দেবী নেংটীশ্বরী-র মূর্তি ।

এবার পটলডাঙা-র চার মূর্তিমান প্রসঙ্গে ।

কথক প্যালারাম-এর কোনো আত্মীয়কে দেখা যায় না ।
তবে উল্লেখ রয়েছে তাঁর মেজদা , বড়দা , ছোটদি -র । 
প্যালা-র গানের গলার তুলনা করা হয় হাঁড়িচাচা-র সঙ্গে
কিন্তু হাবুল সেন-এর সংগীত-প্রতিভার এক সমজদার জুটে যায় । বিন্দেবন

কম্বল নিরুদ্দেশ’ অনুসারে ক্যাবলা চশমা নিয়েছেন ‘গত বছর’
আদতে কিন্তু চার বছর পূর্বের ‘বেয়ারিং ছাঁট’ গল্পে প্রথম ছিল চশমা-প্রসঙ্গ ।
তাঁর হাতঘড়ি তথা হাতের ‘ওয়াইড ওয়ার্ল্ড’ পত্রিকা ,পুলিশ মামা অবশ্য নতুন আমদানি । 
ক্যাবলা-র মুখে হিন্দি সংলাপ শুনতে আমরা অভ্যস্ত ।
কিন্তু খাওয়াদাওয়ার ব্যাপারে তিনিই যে সচরাচর খরচ করে থাকেন, এ-সংবাদটি অজানা ছিল ১০

টিকটিকির ল্যাজ’-এর পর ক্যাবলা-দের বৈঠকখানায় ফের প্রবেশাধিকার পান পড়ুয়া ।
বার-দুয়েক সুখাদ্য সাজিয়ে হাজির হন মাবাবা তখন ট্যুরে । কাকা দিল্লি-তে ।

কুকুরের ল্যাজে ফুলঝুরি বাঁধেন কম্বল
জীবজন্তুর প্রতি এই নির্দয়তা নাকি কুশল মিত্র-র না-পসন্দ ১১
অথচ ‘কুট্টি মামার দন্ত কাহিনী’-তে স্বয়ং ক্যাবলা-কেই দেখা গিয়েছিল কুকুরের ল্যাজকে গুলতি দিয়ে তাক করতে । 

প্রথমে হারানো কম্বল-এর খোঁজ করতে নিতান্তই নারাজ ক্যাবলা
কিন্তু পরের দিকে মনে হয় এই আবিষ্কার-অভিযানের প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন তিনিই ১২

“টেনিদা আমাদের লিডার বটে, কিন্তু সে অ্যাকশনের সময় । মাথা ঠাণ্ডা করে বুদ্ধি যোগাবার বেলায় ওই খুদে চেহারার ক্যাবলা মিত্তির । ১৩
আপাতভাবে উভয়ের মধ্যে ঠাট্টা-গাঁট্টার সম্পর্ক ।
তথাপি এই উপন্যাসে বিন্দেবন ক্যাবলা-কে অপমান করলে, টেনি শর্মা সজোরে তার প্রতিবাদ করেন । ১৪ 
অন্যত্র, স্বয়ং লিডার-এর পাঁজরে চিমটি কেটে তাঁকে থামিয়ে দিতে দ্বিধা করেন না কুশল ১৫ 

ভজহরি মুখুজ্যে-র বাড়ির সামনে  একটি দৃশ্য রয়েছে । তবে এ-যাত্রায় অন্দরে ঢোকেন না পাঠক ১৬
পরের উপকার করিও না’ গল্পের শিক্ষা নির্ঘাত বিস্মৃত হয়েছিলেন টেনিদা
নইলে পুনর্বার উপযাচক হয়ে পরোপকার করার জন্য সুড়সুড় করত না তাঁর নাসিকা ১৭
(চন্দ্রকান্ত চাঁই মহাশয়ের নাক অবশ্য তাঁরটিকেও হার মানায় ১৮)
ইতিপূর্বে টেনি-র দৈহিক ক্ষিপ্রতার পরিচয় মিলেছে নানা কাহিনিতে ১৯ খেলার মাঠেও ।
এখানে তাঁর জুডো-বক্সিং শিক্ষা সার্থক করে সংঘটিত হয় একটি জমজমাট দ্বন্দ্বযুদ্ধ ২০
তাঁকে নতুন এক উপাধি প্রদান করেন হাবুল‘ছত্রপতি’ ২১

গল্প থেকে গল্পান্তরে লম্বাতর হয় টেনিদা-র শাসানি-তালিকা ।
সাধারণত পাদপূরণ করেন প্যালারাম
যেমন এক্ষেত্রে ‘গাল’ গালুডি-তে উড়িয়ে দেওয়ার পরামর্শ তাঁরই ২২
তবে ‘কানগুলান’ কর্ণাট-এ প্রেরণের আইডিয়া কিন্তু হাবুল সেন-এর ২৩

প্রত্যাশিতভাবেই আছে চার মূর্তি-জার্গনের বৃষ্টি ।
পুঁদিচ্চেরি’, মেফিস্টোফিলিস, ‘কুরুবক’-এর ন্যায় বকবক কিংবা পোলাপান-কে জলপান করা । ‘ভাউয়া ব্যাং২৪ পটলডাঙা জিন্দাবাদ
দি গ্রেট ছাঁটাই’ গল্পে প্রথম পাওয়া যায় ‘উড়ুম্বর’ শব্দটি ।
এখানে সেটির একেবারে সটীক উপস্থিতি ।
রয়েছে ছারপোকার ট্যাঙ্গো-নৃত্য প্রসঙ্গ ২৫  
নেংটীশ্বরী-উপাসকদের অভিধান থেকে নির্গত হয় পুলিশ-এর অভিনব প্রতিশব্দ । ‘ম্যাও-ম্যাও’ ২৬

এই জাতীয় প্রচলিত উক্তি টেনিদা-র বেজায় প্রিয় :
“ওই জন্যেই তো দেশ আজও পরাধীন !” (‘ক্যামোফ্লেজ’)
“এই জন্যেই জাতির আজ বড় দুর্দিন !” (‘দি গ্রেট ছাঁটাই’)
কম্বল নিরুদ্দেশ’-এও পাই : “এই জন্যেই দেশের কিচ্ছু হয় না ।” (অধ্যায় ১২) 

রয়েছে একরাশ বিখ্যাত গান-কবিতার উল্লেখ ।
“বঙ্গ আমার জননী আমার”, “এমন দেশটি কোথাও খুঁজে” (‘ধনধান্য পুষ্প ভরা’), “এমন চাঁদের আলো” (‘আজি এসেছি’) ২৭
অন্তিম চ্যাপ্টারে আছে দেবেন্দ্রনাথ সেন-এর ‘চিরযৌবনা’ থেকে ভুল উদ্ধৃতি । ক্যাবলা-কণ্ঠে ২৮ 
টেনি-প্যালা-র মুখে আবার ভুল শেকসপিয়র ২৯

ষষ্ঠ অধ্যায়ে, ‘চার মূর্ত্তি উপন্যাস প্রসঙ্গে রয়েছে ‘রায়গড়ের’ জঙ্গল ।
আদত স্থানটি ছিল ‘রামগড়
প্রথম অধ্যায়ে বদ্রী বাবু, কম্বল-সম্পর্কে বলেন ‘মা-বাপ মরা একমাত্র ভাইপো’ ।
অথচ পঞ্চমে কথক প্যালা, নিরুদ্দিষ্ট কম্বল-এর মায়ের দুঃখে কাতর হন ।

কম্বল নিরুদ্দেশউপন্যাসের অধ্যায়গুচ্ছ শিরোনামহীন ।
চিত্রকর-চলচ্চিত্রকার নীতীশ মুখোপাধ্যায়-এর অলংকরণ, ‘সন্দেশ’-ধারাবাহিক সহ গ্রন্থের অভ্যুদয়-সংস্করণকেও সমৃদ্ধ করে ।
পত্রিকার পয়লা চ্যাপ্টার বাদে, বাকি এগারোটির শীর্ষেই ছাপা হয় একটি সচিত্র হেডপীস

পরিশেষে মূল উপন্যাসের অন্তিম লাইন কটি তুলে দিলাম । 
টেনিদা বললে, ধর্ - ধর্ তো ওই কম্বলটাকে -
কিন্তু কম্বলকে ধরে সাধ্য কার ! সঙ্গে-সঙ্গে এক ছুট ! কম্বল নয় - আরব্য উপন্যাসের সেই ম্যাজিক কার্পেটের মতোই যেন হাওয়ায় মিলিয়ে গেল ।
টেনিদা বুক-ভাঙা দীর্ঘশ্বাস ফেলল একটা ।
- উফ্, ব্রজকিশোরবাবুর ৩০ সেই খ্যাঁটটা ! মাঠেই মারা গেল রে !
- অ্যাকেবারে মারা যাইবো ক্যান্ ? অ্যাকটা পচা আম তো পাইছ !সান্ত্বনার বাণী বেরুল হাবুলের গলা থেকে ।

অচেনা ঠেকছে ? ‘টেনিদা সমগ্রইত্যাদি প্রচলিত বইতে এই বাড়তি অংশ বাদ পড়েছে । 
কিন্তু ‘সন্দেশপত্রিকায় এইভাবেই সমাপ্ত হয়েছিল ‘কম্বল নিরুদ্দেশ৩১ ! 


প্রথম ধারাবাহিক প্রকাশ : 
সন্দেশ’, জ্যৈষ্ঠ ১৩৭২ আষাঢ় ১৩৭৩ (ফাল্গুন ১৩৭২ বাদ)  

ধারাবাহিক উপন্যাসের কিস্তি-সংখ্যা :  

নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়-এর যে-সব ছোটদের গ্রন্থে স্থান পেয়েছে (নির্বাচিত তালিকা) : 
১) কম্বল নিরুদ্দেশ, অভ্যুদয় প্রকাশ-মন্দির, ১৩৭৪ । 
২) কম্বল নিরুদ্দেশ, শৈব্যা পুস্তকালয়, শ্রাবণ ১৩৮৭
৩) নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের কিশোর সম্ভার, অভ্যুদয় প্রকাশ-মন্দির, ১৯৭০ (?)
৪) সমগ্র কিশোর-সাহিত্য, ৩ য় খণ্ড, নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়, আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড, সেপ্টেম্বর ১৯৮৩
৫) বৃহৎ টেনিদা সঙ্কলন’, শৈব্যা প্রকাশন বিভাগ, বইমেলা ১৯৯৩ ।
৬) ‘সন্দেশের গল্প’, নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়, শৈব্যা প্রকাশন বিভাগ, বইমেলা ২০০৫ । ‘সন্দেশ’-এর মূল চিত্র সহ ।
৭) ‘সন্দেশ সেরা উপন্যাস সংকলন  ১৯৬১ - ২০০০’, দে’জ পাবলিশিং, মাঘ ১৪১৯ । ‘সন্দেশ’-এর মূল চিত্র সহ । 

চার মূর্তি-র কোন্ কোন্ চরিত্র উপন্যাসে উপস্থিত : 
টেনিদা, প্যালা, ক্যাবলা, হাবুল 

প্রথম প্রকাশিত হেডপীস ও অলংকরণ :

'Tenida Treasury' Blog.

ধারাবাহিক উপন্যাস কম্বল নিরুদ্দেশ-এর হেডপীস, ‘সন্দেশ’, আষাঢ় ১৩৭২ – আষাঢ় ১৩৭৩
শিল্পী ।। নীতীশ মুখোপাধ্যায়




















'Tenida Treasury' Blog.
ধারাবাহিক উপন্যাস কম্বল নিরুদ্দেশ-এর প্রথম কিস্তির হেডপীস, ‘সন্দেশ’, জ্যৈষ্ঠ ১৩৭২









'Tenida Treasury' Blog.
কম্বল নিরুদ্দেশ-সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি, ‘সন্দেশ’, বৈশাখ ১৩৭২












'Tenida Treasury' blog.
কম্বল নিরুদ্দেশ-এর বহু কিস্তির গোড়ায় প্রকাশিত হয়েছে চুম্বক ।
এইটি বেরয়
সন্দেশ’, ভাদ্র - আশ্বিন ১৩৭২ সংখ্যায়


















'Tenida Treasury' blog.
কম্বল নিরুদ্দেশ-সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি, ‘সন্দেশ’, ফাল্গুন ১৩৭২

























'Tenida Treasury' blog.

কম্বল নিরুদ্দেশ’, ‘সন্দেশ’, আষাঢ় ১৩৭২
শিল্পী ।। নীতীশ মুখোপাধ্যায়






















'Tenida Treasury' blog.

কম্বল নিরুদ্দেশ’, ‘সন্দেশ’, ভাদ্র - আশ্বিন ১৩৭২
শিল্পী ।। নীতীশ মুখোপাধ্যায়






















'Tenida Treasury' blog.

কম্বল নিরুদ্দেশ’, ‘সন্দেশ’, পৌষ ১৩৭২
শিল্পী ।। নীতীশ মুখোপাধ্যায়



















কিছু-কিছু অধ্যায়ের শেষে ব্যবহৃত টেলপীস :

'Tenida Treasury' blog.
সন্দেশ’, আষাঢ় ১৩৭২





















'Tenida Treasury' Blog.

সন্দেশ’, শ্রাবণ, ভাদ্র - আশ্বিন ১৩৭২
শিল্পী ।। সত্যজিৎ রায় (?)

















'Tenida Treasury' blog.

সন্দেশ’, শ্রাবণ, আষাঢ় ১৩৭৩
শিল্পী ।। রেবতীভূষণ ঘোষ


___________________________________________________________________________________ 

= বছর তিনেক আগে এখানেই বেরয় ‘ঝাউ-বাংলোর রহস্য
প্রসঙ্গত, টেনিদা ও সিন্ধুঘোটক’-কে বড়গল্প ধরা হয়েছে ‘টেনিদা ট্রেজারি’ ব্লগে ।
সেই মত ‘কম্বল নিরুদ্দেশটেনিদা-দের উপন্যাস #

= খগেন-এর বয়ান-অনুযায়ী চার মূর্তি-র পিছনে প্রায়ই ঘুরঘুর করেন কম্বল
পরে তাঁকে পাওয়া যায় ‘ঘুঁটেপাড়ার সেই ম্যাচ’ গল্পেও ।

= ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ৪, ৯ ।
প্রসঙ্গত ‘সন্দেশ’-এর অধ্যায়-সংখ্যার সঙ্গে শৈব্যা সংস্করণ-এর ‘কম্বল নিরুদ্দেশ’ গ্রন্থ কিংবা ‘টেনিদা সমগ্র’-র একটা প্রভেদ রয়েছে ।
অধ্যায় ১ - ৫ একই । কিন্তু ‘সন্দেশ’ পত্রিকার ষষ্ঠ ও সপ্তম চ্যাপ্টার, ঐসব গ্রন্থে একত্রিত হয়েছে অধ্যায় ৬ রূপে ।
কাজেই ‘সন্দেশ’-এর মূল ধারাবাহিকের অধ্যায় ৮, ৯, ১০, ১১, ১২ উল্লিখিত বইগুলিতে যথাক্রমে ৭, ৮, ৯, ১০, ১১ ।

= অধ্যায় ৬
সাংঘাতিক !’, তৎপূর্বে  টেনিদা-হীন চরণামৃতগল্পেও আছে বড়দা-প্রসঙ্গ ।

= ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ৯ (দ্রষ্টব্য টীকা )
চার মূর্তির অভিযান’ এবং ‘ঝাউ-বাংলোর রহস্য’ উপন্যাসেও ছিলেন প্যালা-র ছোড়দি 

= ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১০ (দ্রষ্টব্য টীকা )
প্রভাত সঙ্গীত’ গল্পে আছে দাঁড়কাক-এর উপমা ।

= অধ্যায় ২

= যথাক্রমে ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ৪ ও ৯ (দ্রষ্টব্য টীকা )
ঘড়িখানি পরীক্ষায় স্কলারশিপ পাওয়ার পিতৃদত্ত পুরস্কার । 

= ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১২ (দ্রষ্টব্য টীকা )

১০ = অধ্যায় ৪  

১১ = অধ্যায় ১ । 

১২ = অধ্যায় ৫, ৬ । 

১৩ = অধ্যায় ৩ । 

১৪ = অধ্যায় ৬ । 

১৫ = অধ্যায় ৭ । 

১৬ = ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ৯ (দ্রষ্টব্য টীকা ) 

১৭ = অধ্যায় ১ । 

১৮ = ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১০ (দ্রষ্টব্য টীকা ) 

১৯ = ‘খট্টাঙ্গ ও পলান্ন’, ‘ভজহরি ফিলম কর্পোরেশন
দুটিতেই প্যালা-কে পাঁজাকোলা করে বহন করেন টেনিদা 

২০ = ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১১ (দ্রষ্টব্য টীকা ) 

২১ = ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ৯ (দ্রষ্টব্য টীকা ) 

২২ = ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১২ (দ্রষ্টব্য টীকা ) 

২৩ = অধ্যায় ১ 

২৪ = ‘সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১২ (দ্রষ্টব্য টীকা )
ভাউয়া ব্যাং’-এর সঙ্গে পাঠকের আলাপ ‘ঝাউ-বাংলোর রহস্য’-তে । 

২৫ = অধ্যায় ৭
পরে আবার ‘চেঙ্গিস আর হ্যামলিনের বাঁশিওলা’ গল্পে । 

২৬ = অধ্যায় ৬ । 

২৭ = প্রথম দুটি অধ্যায় ৯-এ ।  তৃতীয়টি দশম অধ্যায় থেকে । 

২৮ = মূল : “কম্বল-সম্বল-হারা দরবেশ কাঁপে যথা চুপে !” 
ক্যাবলা-সংস্করণ : “কম্বল-সম্বল যথা দরবেশ কাঁপে চুপে চুপে -” 

২৯ = অধ্যায় ৯ ।
Julius Caesarনাটকের মূল উক্তি : “Cowards die many times before their deaths”  

৩০ = বদ্রী বাবু-র পরিবর্তে এখানে ব্রজকিশোর ছাপা হয়েছিল । 

৩১ = সন্দেশ’-এ প্রকাশিত ধারাবাহিকের অধ্যায় ১২ (দ্রষ্টব্য টীকা ) , আষাঢ় ১৩৭৩  
___________________________________________________________________________________

No comments:

Post a Comment